ঝর্ণাতে বা পাহাড়ে যাবার সময় কেমন প্রস্তুতি নিয়ে যাওয়া উচিত বিস্তারিত গাইডলাইন

বর্ষাকে কেন্দ্র করে ভ্রমণ পিপাসু মানুষ প্রতিনিয়ত ঝর্ণার মোহনীয় রুপে মুগ্ধ হতে বের হয়ে যায় কিন্তু ঝর্ণা দেখতে গেলে নিতে হয় একটু ভিন্ন করে প্রস্তুতি 🙂 ভালো প্রস্তুতি ঝর্ণা দেখার কষ্টটা বা ট্রেকিং এ কষ্টটা অনেক কমিয়ে দেয় আর কমফোর্ট দেয় 🙂 স্বপ্নযাত্রার সবসময়ই ঝর্ণাতে ঘুরতে যাবার ইভেন্ট থাকে তাই সবার জন্য একটা ভালো গাইডলাইন লেখার চেষ্টা করলাম 🙂 আশা করি কেউ হেলাফেলা না করে এগুলো ভালো করে ফলো করার চেষ্টা করবেন

  • প্রথমেই যেটা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন সেটা হলো জুতা ,যেহেতু আপনার পুরো শরীরের ভারটা পাঁয়ের উপরে থাকে সেহেতু ভালো মানের গ্রিপ সম্পন্ন জুতা মানেই হাটার সময় ভালো কনফিডেন্স আর পিছলে যাবার সম্ভবনা কম 🙂 তাই জুতা কিনবেন প্রথমত পানিতে ভিজলেও কিছু হয়না এবং জুতার নীচে ভালো গ্রিপ সম্পন্ন জুতা ।। এপেক্স ও বাটাতে এমন বেশ কিছু সুন্দর জুতা আছে এমন তবে দামটা একটু বেশি ১২০০-২০০০ এর মধ্যে  সেক্ষেত্রে প্লাস্টিকের বেল্টওয়ালা বেশ কিছু জুতা পাবেন খুব সস্তায় ১২০-১৫০ টাকার মধ্যে এগুলোও সস্তার মধ্যে বেশ কাজে দেয় 🙂 ফুটপাতে বা ছোট খাট জুতার দোকানে এসব জুতাপাবেন ।। এগুলো হলো সস্তায় সেরা সমাধান 🙂
  • এবার আসি কাপড়ের বেলায় যতটা সম্ভব হালকা কাপড় চোপড় পড়বেন ছেলেরা টিশার্ট সাথে থ্রিকোয়ার্টার পড়তে পারেন এক্ষেত্রে ভারী কাপড় পড়বেন না এগুলো ভিজলে সহজে শুকায়না সারাক্ষণ ভিজা ভিজা থাকে জার্সি টাইপ পড়বেন এগুলো দ্রুত শুকায় 🙂 এছাড়া ট্রাভেলারদের কিছু প্যান্ট আছে পলিষ্টারের এগুলো হলো বেস্ট সলিউশন এক্ষেত্রে  ।। নারীদের ক্ষেত্রে সেলোয়ার অবশ্যই এভোয়েড করবেন না হয় বিব্রতকর পরিস্হিতে পড়বেন জিন্স বা গ্যাভাডিং বা পলিষ্টারের ট্রাভেলার্স কিছু প্যান্ট আছেসেগুলো পড়বেন আর সাথে মোটা গেন্জি বা জিন্সের শার্ট বা টিশার্ট পড়তে পারেন 🙂
  • এবার আসি খাবার নিয়ে ট্রেকিং বা ঝর্ণা দেখতে যাবার সময় দেখা যাক লম্বা সময় কোন ভারী খাবার খাওয়ার সুযোগ থাকেনা তাই এমন খাবার খেতে হয় যেটা ক্যারি করা ইজি এবং শরীরে প্রচুর এনার্জি দিতে পারবে এক্ষেত্রে মিষ্টি জাতীয় খাবার আপনাকে সবচেয়েবেশি সাপোর্ট দিবে যেমন খেজুর ,চকলেট ,মিষ্টি ,চুইংগাম এসব সাথে রাখবেন আর ছোট ছোট বিস্কিটের প্যাকেটও সাথে রাখতে পারেন আর সবচেয়ে জরুরী হলো পানি ..পানি অবশ্যই সাথে রাখবেন আর এর সাথে স্যালাইন বা গ্লুকোজ নিয়ে নিবেন মিশিয়ে খাবেন প্রচুর এ্যানার্জি আসবে শরীরে 🙂 পানিটা কিন্তু সবচেয়ে জরুরী 🙂
  • অনেক সময় বৃষ্টি নামে বা ঝর্ণাতে ভিজার পর ভিজা কাপড় থাকে সেজন্য এক্সটা পলিথিন নিয়ে নিবেন সাথে যেন ব্যাগে পলিথিনে ভিজা কাপড় রাখতে পারেন আর হুট হাট বৃষ্টি থেকে ইলেকট্রিক ডিভাইস বা মোবাইল বাঁচাতে পলিথিন আপনাকে বেশ ভালো সাপোর্ট দিবে 🙂
  • ধীরে ধীরে হাটবেন তাড়াহুড়া করবেন না আর ঝিরিতে বড় বড় পাথরে লাফ দিতে যাবেন না ছোট ছোট পা দিয়ে এগুনোর চেষ্টা করবেন শ্যাওলা জমে আছে এমন পাথর এড়িয়ে চলবেন এগুলো বেশ পিচ্ছিল থাকে একটু অসতর্কতা ভয়ানক বিপদ ডেকে আনতে পারে কিন্তু ।
  • কিছু ফাস্ট এইড নিয়ে নিতে পারেন যেন ব্যান্ডএইড ,মুভ স্পে এগুলো যেকোন সময় কাজে লাগতে পারে
  • ফুটবল খেলার এ্যাংলেট গুলো চিনেন না ? এগুলো পড়লে ট্রেকিং এ বেশ সাপোর্ট পাওয়া যায় গোড়ালীতে নিয়ে নিতে পারেন কাজে দিবে
  • অনেকে ঝোক ভয় পায় সেজন্য হালকা লবণ নিয়ে নিতে পারেন লবণ লাগিয়ে দেবার সাথে সাথে শরীর থেকে ঝোক নীচে পড়ে যায় ।।
  • পাহাড়ে বা ঝিরিতে কখনো দলছুট হবেন না দলনেতার কথা মেনে চলবেন ব্যাগ যত সম্ভব হালকা রাখবেন অযথা কাপড় চোপড় নিয়ে ব্যাগ ভারী করে নিজের কষ্ট বাড়াবেন না ।

ধন্যবাদ এগুলোই আসলে পরামর্শ এগুলো মেনে চললে আশা করি বেশ ভালোভাবে ঘুরে আসতে পারবেন 🙂 আর কোন কিছু জানতে স্বপ্নযাত্রার ফেইসবুক গ্রুপে পোস্ট দিতে পারেন 🙂

  • Tags

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook
YouTube